• বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন

যেভাবে নির্বাচিত করা হবে ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: / ২২ শেয়ার
প্রকাশিত : রবিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২২
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সম্ভাব্য তিন প্রার্থী- ঋষি সুনাক, পেনি মর্ডান্ট এবং বরিস জনসন।

মাত্র ৪৫ দিন প্রধানমন্ত্রী থাকার পর পদত্যাগ করেছেন লিজ ট্রাস। তার সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করে বৃহস্পতিবার ট্রাস জানিয়েছেন, এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন নেতা নির্বাচনের কাজ শেষ হবে। আগামী ২৮ অক্টোবর নতুন নেতার নাম ঘোষণা করা হবে। ততদিন তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকবেন। এখন প্রশ্ন হলো, লিজ ট্রাসের পর কে যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন এবং কিভাবে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী বাছাই করা হবে।

মাত্র ৪৫ দিন ক্ষমতায় থাকা সত্ত্বেও আজীবন বিপুল পরিমাণে ভাতা পাবেন লিজ ট্রাস
ইউকে পার্লামেন্টের ওয়েবসাইটে বিস্তারিত নিয়ম অনুসারে, যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রার্থীতা নিশ্চিত করতে, প্রথম ধাপ হল ১০০ জন এমপির সমর্থন পাওয়া। যদি একজন ব্যক্তি এটি অর্জন করেন তবে তিনি সরাসরি নির্বাচিত হবেন। সোমবার, ২৪ অক্টোবর মনোনয়ন শেষ হবে। চূড়ান্ত ব্যালটে থাকা প্রয়োজনীয় ১০০টি মনোনয়ন ইমেলের মাধ্যমে বা শারীরিকভাবে জমা দেওয়া যেতে পারে।

যদি একাধিক ব্যক্তি প্রয়োজনীয় সমর্থন পান, তবে রক্ষণশীল এমপিরা ভোট দেবেন এবং সবচেয়ে কম সংখ্যক সমর্থন পাওয়া প্রার্থীকে বাদ দেয়া হবে।

যদি তিনজন প্রার্থী ১০০ জনের সমর্থন পান, সোমবার এমপিদের ভোটে একজন প্রার্থীকে বাদ দেয়া হবে, শীর্ষ দুই প্রার্থী অনলাইন ভোটের অগ্রসর হবে।

এরপর মঙ্গলবার থেকে প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজার পার্টি সদস্য একটি অনলাইন ভোটে অংশগ্রহণ করবেন যেখানে তারা শীর্ষ দুই প্রার্থীর মধ্যে থেকে পছন্দের জনকে ভোট দেবেন এবং ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবেন। শুক্রবার অনলাইন ভোট শেষ হবে এবং একই দিনে ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

উল্লেখ্য, পার্লামেন্টে ৩৫৭ জন কনজারভেটিভ সদস্য রয়েছে, এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩জন প্রার্থী পরবর্তী যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রার্থীতা নিশ্চিত করতে পারবেন।

এদিকে যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী ও শাসক দল কনজারভেটিভ পার্টির নেতা হবার দৌড়ে যোগ দিতে ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় একশ এমপির সমর্থন পেয়েছেন সাবেক অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক।

বিবিসির ট্র্যাকার অনুসারে, শনিবার রাত পর্যন্ত ১৯৮ জন কনজারভেটিভ এমপি তাদের সমর্থন ঘোষণা করেছিলেন। তার মধ্যে সুনাক ১২২ জন এমপির সমর্থন পেয়েছেন। এই হিসেবে যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে নিজের অবস্থান অনেকটাই শক্ত করলেন সুনাক।

অন্যদিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এই দৌড়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন। যদিও বরিস জনসনের সমর্থকরা বলছেন যে তিনি ১০০ এমপির সমর্থন পেয়েছেন, তবে বিবিসির ট্র্যাকারে ৫৩-এ ছিলেন।

এছাড়াও হাউস অফ কমন্সে রক্ষণশীলদের নেতা পেনি মরডান্ট প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে তৃতীয় অবস্থানে আছেন। লিজের ঘোষণার পর তিনি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য লড়াইয়ে থাকার ইঙ্গিত দিয়েছেন। তবে বিবিসির ট্র্যাকারে পেনি মর্ডান্ট সমর্থন পেয়েছেন মাত্র ২৩ এমপির।

সূত্র: বিবিসি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ