• রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৮:৫৫ অপরাহ্ন

বাজারে খোলা সয়াবিন আর বিক্রি হবে না

আমার কাগজ ডেস্ক: / ২২ শেয়ার
প্রকাশিত : বুধবার, ২০ জুলাই, ২০২২

৩১ জুলাইয়ের পর বাজারে আর খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি করা যাবে না। এ ছাড়া ভোজ্যতেল, চিনি, পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের আন্তর্জাতিক বাজারদর কমলে দেশের বাজারেও কমানোর ব্যবস্থা করা হবে। এ জন্য ১৫ দিন পরপর সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সঙ্গে বৈঠক করবে সরকার।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আজ অনুষ্ঠিত ‘নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা–সংক্রান্ত টাস্কফোর্স কমিটি’র তৃতীয় বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি), জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, এফবিসিসিআই আর ভোজ্যতেল ও চিনি পরিশোধন কারখানা সমিতির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
নিত্যপণ্যের আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে উৎপাদনে জোর দিতে বলা হয়েছে বৈঠকে। পেঁয়াজের আমদানি অনুমতিপত্র (আইপি) বজায় রাখার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে, যাতে ভারতসহ পেঁয়াজ রপ্তানিকারক দেশগুলো রপ্তানি বন্ধ করে দিলে বাংলাদেশের কোনো সমস্যা না হয়। ভোজ্যতেলের ক্ষেত্রেও শুধু সয়াবিন ও পাম তেলের ওপর নির্ভর না করে সূর্যমুখী, সরিষা ও রাইসব্র্যান তেল উৎপাদনের তাগিদ দেওয়া হয়। বৈঠকে দ্বিতীয় সভার সিদ্ধান্ত কতটুকু বাস্তবায়িত হয়েছে, তা নিয়েও আলোচনা হয়।

বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে বাড়লে দেশীয় বাজারে বাড়ে, কিন্তু কমলে আর কমে না, এমন ধারণা আমরা ভেঙে দিয়েছি ভোজ্যতেল দিয়ে। আগামী মাসে এ ভোজ্যতেলের দাম সমন্বয় নিয়ে আবার বৈঠক হবে। খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি বন্ধের বিষয়ে এফবিসিসিআই সহযোগিতা করবে বলে আশ্বাস দিয়েছে।’

বৈঠকে জানানো হয়, আজ বুধবার থেকে হ্রাসকৃত মূল্যে (১৮৫ টাকা লিটার) সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে কি না, সেটি তদারকি করবে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বৈঠকে ২০২০-২১ এবং ২০২১-২২ অর্থবছরে চিনি, সয়াবিন ও পাম তেলের ঋণপত্র (এলসি) খোলা ও নিষ্পত্তির চিত্র তুলে ধরা হয়। ২০২০-২১ অর্থবছরে ১৯ লাখ ৫৯ হাজার ৯৪০ টন অপরিশোধিত চিনি আমদানির এলসি খোলা হয়। পরের অর্থবছরে খোলা হয় ২২ লাখ ৫১ হাজার টনের এলসি। এক বছরের ব্যবধানে ২ লাখ ৯১ হাজার ৬১ টন চিনি আমদানির এলসি বেশি খোলা হয়। পরিশোধিত চিনিও ৩৫ হাজার ৭৭৩ টনের জায়গায় হয় ১ লাখ ২৭ হাজার ৩৬৭ টন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ