• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০১ অপরাহ্ন

পরীমনির রিমান্ড: দুই বিচারককে আবারও ব্যাখ্যা দেওয়ার নির্দেশ

আমার কাগজ প্রতিবেদকঃ / ১৩ শেয়ার
প্রকাশিত : বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

দেশের আলেম-ওলামাদের হয়রানি করা হচ্ছে দাবি করে হেফাজতের আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী বলেছেন, আলেম-ওলামাদের অনেকে বিশেষ গোষ্ঠীর ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে অনিরাপত্তায় ভুগছেন। কোথাও কোথাও অজ্ঞাতপরিচয়ে গভীর রাতে তাদের ঘর থেকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) এক বিবৃতিতে সাম্প্রতিক সময়ে আলেম-ওলামাদের আটকের বিষয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে সংগঠনটির আমির এ কথা বলেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, সম্প্রতি কয়েকজন আলেমকে বিভিন্নভাবে গভীর রাতে নিজ বাড়ি বা অন্য কোনো স্থান থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। একটি স্বাধীন গণতান্ত্রিক দেশে এমন ঘটনা কাম্য নয় বলে আমরা মনে করি।

মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী বলেন, কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ থাকলে তা যাচাই-বাছাই ও সুষ্ঠু তদন্ত করে তার যথাযোগ্য বিচার করার সুযোগ রয়েছে। আমরা সরকারের কাছে অনুরোধ করছি, যেন জনমনে ভয়-ভীতি ও আতঙ্ক তৈরি করে এমনভাবে কোনো আলেম বা নাগরিককে ধরপাকড় না করা হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তি, তিনি যেই হন না কেন, আইন অনুযায়ী তার বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে।

অগণতান্ত্রিকভাবে কেন আটক করা হচ্ছে- প্রশ্ন রেখে হেফাজতের আমির বলেন, একটি স্বাধীন গণতান্ত্রিক দেশে এসব অগণতান্ত্রিক নিয়মকে শক্ত হাতে দমন করা না গেলে দেশের মধ্যে বিশৃঙ্খলা তৈরি হতে পারে। জনমনে ক্ষোভ ও হতাশা সৃষ্টি হতে পারে। এর মাধ্যমে কোনো আত্মগোপনকারী শত্রুগোষ্ঠী ইসলাম ও দেশের বিরুদ্ধে সুযোগ নিতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বিবৃতিতে হেফাজতের এই নেতা আরও বলেন, আমরা বলছি না, আলেম-ওলামারা নিষ্পাপ বা সব ধরনের দোষ ও অভিযোগ থেকে মুক্ত। তাদের মধ্যেও অপরাধী বা দোষী থাকতে পারে। কিন্তু, আমাদের দাবি- অভিযুক্তদের দেশের সাধারণ নিয়মে বিচারের আওতায় আনলে জনগণ স্বস্তি পাবে।

আলেম-ওলামারা দেশের বা সরকারের শত্রু নন উল্লেখ করে হেফাজতের আমির সুষ্ঠু তদন্ত করে গ্রেফতার আলেম-ওলামাদের মুক্তির দাবি জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ

পুরাতন সব সংবাদ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
%d bloggers like this: