• বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১১:৩৫ অপরাহ্ন

নির্দেশ নয়, সংসদ সদস্য বাহারকে বিনীত অনুরোধ করেছিলাম: সিইসি

আমার কাগজ ডেস্ক: / ১০ শেয়ার
প্রকাশিত : সোমবার, ২০ জুন, ২০২২

কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়নি, বিনীত অনুরোধ করা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

সোমবার বেলা ১১টায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন পরবর্তী সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা জানান।

সিইসি বলেন, আমরা তন্ন তন্ন করে খুঁজে দেখেছি যে, একজন সংসদ সদস্যকে কখনই এলাকা ত্যাগ করার আদেশ দেয়নি নির্বাচন কমিশন। আমরা বাহাউদ্দিনকে প্রকাশ্যে প্রচারে অংশ নিতে দেখিনি। কিন্তু কেউ কেউ বলছেন, উনি কৌশলে অংশ নিয়েছেন। আমাদের একটা প্রত্যাশা ছিল উনাকে যদি অনুরোধ করি তাহলে আর কথা উঠবে না।

নির্বাচিত কমিশন কাউকে এলাকা ত্যাগ করার আদেশ দিতে পারে না বলে জানান প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

তিনি বলেন, আচরণবিধি অনুযায়ী উনি (বাহাউদ্দিন) অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি তাতে সন্দেহ নেই। আমরা তাকে এলাকা ত্যাগ করার আদেশ করিনি। তাকে বিনীতভাবে অনুরোধ করেছিলাম, সেই চিঠি আছে। কিন্তু চারদিকে ছড়িয়ে গেলে আদেশ করার পরও তিনি প্রতিপালন করতে পারলেন না। এ কথা পুরোপুরি সত্য নয়। সংসদ সদস্য কেন, কোনো সাধারণ মানুষকেও এলাকা ত্যাগ করার আদেশ দিতে পারে না নির্বাচন কমিশন।

সিইসি আরও বলেন, বাহাউদ্দিন কোনো আইন ভঙ্গ করেননি। অভিযোগ আসছিল তিনি গোপনে প্রচার চালাচ্ছেন। তাই তাকে অনুরোধ করেছি। তবে উনি চলে গেলে হয়তো ভালো হতো।

আচরণবিধি অনুযায়ী বাহাউদ্দিন অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি উল্লেখ করে সিইসি বলেন, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু নির্বাচন কমিশন সংসদ সদস্য কেন কোনো সাধারন মানুষকেও তার এলাকা ত্যাগ করার আদেশ দিতে পারে না। আমরাও বাহাউদ্দিনকে এলাকা ত্যাগ করার কোন আদেশ দিইনি। তাকে বিনীতভাবে অনুরোধ করেছিলাম, সেই চিঠি আছে। কিন্তু চারদিকে ছড়িয়ে গেল আদেশ করার পরও তিনি প্রতিপালন করতে পারলেন না। এ কথাটি পুরোপুরি সত্য নয়।’
মতবিনিময় সভায় নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশিদা সুলতানা, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আহসান হাবীব খান, মো. আলমগীর ও ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৫ জুন অনুষ্ঠিত কুসিক নির্বাচনে মাত্র ৩৪৩ ভোটে পরাজিত হতে হয় দুবারের মেয়র মনিরুল হক সাক্কুকে। ১০৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ১০১টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণার পর হঠাৎ কোনো কারণ ছাড়াই ফল ঘোষণা স্থগিত রাখা হয় এবং শেষ মূহুর্তে একটি ফোনে ফল পরিবর্তনের অভিযোগ তোলা হয় সাক্কু ও তার সমর্থকদের মধ্য থেকে। এ ছাড়া তিনি ফল প্রত্যাখ্যান করার ঘোষণাও দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ