• বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৩২ অপরাহ্ন

নবীনগরে ইউপি সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আ’লীগ নেতাদের সামনেই চেয়ার ভাঙচুর, মারামারি

প্রতিবেদকের নাম / ২৪ শেয়ার
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১১ অক্টোবর, ২০২২

নবীনগর প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে দুপক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আ’লীগ নেতা সেলিম মিয়া (৫২) গুরুতর আহত হয়ে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। জানা যায়, গত ৬ মাস পূর্বে উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা জামালের নেতৃত্বে বিদ্যাকুট ইউনিয়নের ওয়ার্ড কমিটিগুলো গঠন করা হয়েছিল। আগামী ইউনিয়ন সম্মেলনকে সফল করতে বিদ্যাকুট ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর লিষ্ট যাচাই-বাছাই উপলক্ষে গত ৭ অক্টোবর বিদ্যাকুট ইউনিয়ন আ’লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা চলাকালীন ৮নং ওয়ার্ড কমিটি নিয়ে সেলিম মিয়া অসন্তোষ প্রকাশ করলে উপজেলা ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সামনেই প্রতিপক্ষের লোকজন তার ও তার লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় সেলিম মিয়া সহ উভয় পক্ষের প্রায় ৫-৬ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
উপজেলা আ’লীগের সহ-প্রচার সম্পাদক বিদ্যাকুট ইউনিয়নের বাসিন্দা প্রনয় কুমার ভদ্র পিন্টুর কাছে সেই দিনের ঘটনা জানতে চাইলে তিনি বলেন-আমরা চেয়ারম্যান অফিসে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ কাউন্সিলর তালিকা তৈরি করার জন্য সভা করছিলাম, এমন সময় বাহিরে চিৎকার চেঁচামেচি দৌড়াদৌড়ির আওয়াজ শুনতে পায়।
এ ব্যাপারে বিদ্যাকুট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাকারুল হক বলেন, বর্ধিত সভা চলাকালীন দুপক্ষের হাতাহাতির ঘটনা ঘটছে এবং দুপক্ষের প্রায় ৫-৬ জন আহত হয়েছেন। এতে পরিষদের কিছু চেয়ারও ভাংচুর করা হয়েছে।
এ বিষয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা সেলিম মিয়া জানান, আমি আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সালাউদ্দিন বাবু ৮ নং ওয়ার্ডে সাবেক বিএনপি নেতা জালাল মিয়াকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি বানিয়েছেন। আমি বর্ধিত সভা চলাকালীন এ কমিটি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করলে সালাউদ্দিন বাবু ও জালাল মিয়ার নেতৃত্বে কয়েকজন বহিরাগতভাবে আমার ও আমার লোকজনের উপর হামলা করা হয়।
উপজেলা আওয়া মীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোস্তফা জামাল এ ব্যাপারে জানান, কোন বিএনপি নেতাকে ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি করা হয়নি। যাকে সভাপতি করা হয়েছে তিনি (জালাল মিয়া) ২০১১ সালের ওয়ার্ড কমিটিতে সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে ছিলেন। তাছাড়া ১৯ টি ভোটের মধ্যে সে ১৫ ভোট পেয়ে সভাপতি হয়েছেন। যারা তাকে বিএনপি নেতা বলে প্রচার করছেন, এগুলো মিথ্যা প্রচারণা।
বিদ্যাকুট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সালাউদ্দিন বাবু বলেন, আমার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা। এখানে দুপক্ষই আমার এবং কোন বিএনপি নেতাকে ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি বানানো হয়নি।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ