• রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

দেশের পথে ‘বাংলার সমৃদ্ধি’র নাবিকরা

প্রতিবেদকের নাম / ৩৭ শেয়ার
প্রকাশিত : শনিবার, ৫ মার্চ, ২০২২

চট্টগ্রাম ব্যুরো:

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে আটকে বাংলাদেশি জাহাজ ‘এমভি বাংলার সমৃদ্ধি’র ২৮ নাবিককে দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। শনিবার বাংলাদেশ সময় দুপুরে ইউক্রেনের ওলভিয়া বন্দর সংলগ্ন একটি শেল্টার হাউজ থেকে দেশের পথে যাত্রা শুরু করেছেন তারা।

বাণিজ্যিক জাহাজের নাবিকদের সংগঠন বাংলাদেশ মার্চেন্ট মেরিন অফিসার্সস অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএমওএ) সাধারণ সম্পাদক মেরিন ইঞ্জিনিয়ার মো. সাখাওয়াত হোসাইন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

সাখাওয়াত হোসাইন বলেন, ‘সেখানে থাকা নাবিকদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়েছে। উনারা জানিয়েছেন যে, উনারা রওনা হয়েছেন।’

তবে বর্তমানে তাদের অবস্থান কোথায় সেটা জানাতে তিনি অপরাগতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘নিরাপত্তাজনিত কারণে তাদের অবস্থান ও তারা কোন পথে দেশে ফিরছেন সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারছি না। নাবিকরা বলেছেন, তাদের জন্য দোয়া করতে। তারা কোনো নিরাপদ গন্তব্যে পৌঁছালে আপনাদের (সাংবাদিকদের) জানাব।’

গত বুধবার ইউক্রেনের ভলিবিয়া বন্দরে আটকে থাকা বাংলাদেশি জাহাজে ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালায় রুশ সেনারা। এ ঘটনায় জাহাজের তৃতীয় ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমান আরিফ নিহত হন। বাকি ২৮ নাবিক ও ক্রু অক্ষত থাকলেও তাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করে। এ অবস্থায় ঘটনার পর দিন তাদের উদ্ধার করে একটি শেল্টার হাউজে নিয়ে যাওয়া হয়। ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় জাহাজটিও পরিত্যাক্ত ঘোষণা করা হয়। এরপর নাবিকদের দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয় পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়।

গত শুক্রবার পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানিয়েছিলেন, পাশের দেশ মলদোভা হয়ে বাংলাদেশি এই নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। ইউক্রেইনে বাংলাদেশের দূতাবাস না থাকায় পোল্যান্ড দূতাবাস থেকে সব বিষয় দেখভাল করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পোল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সুলতানা লায়লা হোসেন শনিবার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এখনই এ বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না। নাবিকরা নিরাপদ গন্তব্যে পৌঁছানোর পর আপনাদের সব জানাব। আপনারা ধৈর্য ধারণ করুন।’

বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের (বিএসসি) জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধি ডেনিশ কোম্পানি ডেলটা করপোরেশনের অধীনে ভাড়ায় চলছিল। গত ২৬ জানুয়ারি মুম্বাই বন্দর থেকে রওনা হয়ে তুরস্কের ইরেগলিতে যায়। সেখান থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেইনের ওলভিয়া বন্দরের উদ্দেশে রওনা হয়।

২২ ফেব্রুয়ারি জাহাজটি ওলভিয়া বন্দরের আউটার অ্যাংকরেজে ছিল, পরদিন ইনার অ্যাংকরেজে নিয়ে যাওয়া হয়। এই বন্দর থেকে সিমেন্ট ক্লে নিয়ে ২৪ ফেব্রুয়ারি ইতালির রেভেনা বন্দরের উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা ছিল বাংলার সমৃদ্ধির। কিন্তু সেদিন সকালেই রাশিয়ার অভিযান শুরু হয় ইউক্রেইনে। ফলে সেখানেই আটকে যায় জাহাজটি। যুদ্ধের মধ্যে নাবিকরা জাহাজেই ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ