• রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ১২:২০ অপরাহ্ন

দূষিত ঢাকার চেহারা দেখে লজ্জা লাগে কাদেরের

আমার কাগজ ডেস্ক: / ৩৪ শেয়ার
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ, ২০২২

বিভিন্ন সংস্থার জরিপে ঢাকা শহরকে বসবাসের অযোগ্য ও সবচেয়ে দূষিত বলে যে তথ্য উঠে এসেছে তা দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার সঙ্গে যায় না বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঢাকার এই পরিস্থিতি দেখতে লজ্জা লাগে বলেও জানিয়েছেন কাদের।

মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে ঢাকা সাবওয়ে নির্মাণের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা শীর্ষক প্রকল্পের ড্রাফট ফাইনাল রিপোর্টের ওপর মতামত গ্রহণের জন্য সেমিনারে যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

এসময় তিনি ঢাকা শহর অপরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা, গণপরিবহণের বেহাল দশা নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ বিশ্বের অর্থনৈতিকভাবে অগ্রসর ১১টি দেশের তালিকায় রয়েছে। সে বাংলাদেশের সঙ্গে এটা মানায় না। বিশ্বের ১৪০টি বাসের অযোগ্য শহরের মধ্যে ঢাকা ১৩৭তম। আবার সবচেয়ে বেশি দূষিত শহর। এই দুইটি অপবাদ আমাদের। দেখতে খারাপও লাগে। লজ্জাও লাগে। আমার মনে হয়, এটা মেয়র সাহেবরা জানেন এবং এটা মাথায় রেখেই ঢাকাকে নিয়ে পরিকল্পনা করতে হবে।

অপরিকল্পিতভাবে ঢাকা শহর গড়ে ওঠেছে এমন দাবি করে কাদের বলেন, আমরা এভাবে আর থাকতে চাই না। এ সাবওয়ের স্বপ্ন দেখেন শেখ হাসিনা। এই সিটির এখন যে অবস্থা, সাবওয়ে আমাদের করতে হবে, এর কোনো বিকল্প নেই। আড়াই কোটি মানুষের এই নগরীতে সাবওয়ে নির্মাণ একমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দ্বারাই সম্ভব।

কাদের বলেন, স্বপ্নগুলো একজনই দেখেছেন, পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, কর্ণফুলী টানেল এই স্বপ্নগুলো দেখেছেন তিনি (প্রধানমন্ত্রী)। সাবওয়ের কথা আমরা অতদিন মাথায় নিইনি। বারবার উনি সড়কের কোনো প্রোগ্রাম হলে বলে ফেলতেন সাবওয়ে করা হবে। এই সিটির এখন যে অবস্থা, সাবওয়ে আমাদের করতেই হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। পদ্মা যে করতে পারে, সাবওয়েও সে করতে পারে। আড়াই কোটি লোক অলরেডি রয়ে গেছে। ঠাঁই নাই ঠাঁই নাই ছোট সে তরী।

ঢাকার গণপরিবহণের চিত্র নিয়ে আক্ষেপ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, রাজধানীর বাসগুলো ভালো করতে অনেক চেষ্টা করেছি। রঙ-চঙ করে বাস বের করে, ফিটনেস নেই। এই ছবির পরিবর্তন করতে হবে। এই শহরে গাড়িগুলোর যে চেহারা, গরিব-গরিব! শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নকে যে উচ্চতায় নিয়ে গেছেন তার সঙ্গে তুলনা হয় না। সেটার সঙ্গে মেলে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ