• বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন

দুবার ব্যাট করেও ১২৪ ওভার টিকে থাকা কঠিন বাংলাদেশের জন্য

স্পোর্টস ডেস্ক: / ২৪ শেয়ার
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১

বৃষ্টিতে প্রায় দুই দিন ভেসে যাওয়ার পর আজ চতুর্থ দিনের খেলা শুরু হয় দেরিতে। দ্বিতীয় সেশনে পাকিস্তানের দ্রুত রান তোলার চেষ্টা দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, ঢাকা টেস্টে ফল খুঁজছে পাকিস্তান।

শেষ পর্যন্ত ৪ উইকেটে ৩০০ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে পাকিস্তান। এখন একটা হিসেব কষা যাক।

বাংলাদেশ যখন প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামে, তখনও চতুর্থ দিনের খেলার দেড় সেশন বাকি ছিল। হাতে আছে আর এক দিন। পাকিস্তানের লক্ষ্যটা এই পরিস্থিতি থেকেও বোঝা যায়—বাংলাদেশকে যত দ্রুত সম্ভব অলআউট করে ফলোঅনে ফেলে দ্বিতীয় ইনিংসে আবারও ব্যাটিংয়ে নামানো।

ব্যাটিংয়ের আনুষ্ঠানিকতা নিজেদের এক ইনিংস দিয়েই সারতে চায় পাকিস্তান। বাকি কাজ বোলারদের ওপরে। বাংলাদেশকে দুবার অলআউট করতে ১৪৮ ওভার হাতে ছিল পাকিস্তানের।

বলা বাহুল্য, সে লক্ষ্যে এখন তর তর করে এগিয়ে যাচ্ছে বাবর আজমের দল। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ‘আত্মহত্যা’ সাজিদ খান–নোমান আলীদের কাজটা সহজ করে দিয়েছে। চতুর্থ দিনে আলোকস্বল্পতার কারণে খেলা শেষ হয়েছে আগেই। প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ৭ উইকেটে ৭৬ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

ফলোঅন এড়াতে চাই আরও ২৫ রান। পরিস্থিতি বলছে, এই রান তোলাই অনেক কঠিন হবে বাংলাদেশের জন্য। এবার পুরোনো হিসেবে ফেরা যাক।

আলোকস্বল্পতায় খেলা শেষ হওয়ায় বাংলাদেশের কাজটা একটু সহজ হয়েছে। শেষ দিনে সর্বোচ্চ ৯৮ ওভার খেলা হবে। আর আজ বাংলাদেশ খেলেছে ২৬ ওভার। অর্থাৎ ফলোঅনে পড়লে ম্যাচ বাঁচাতে দুই ইনিংস মিলিয়ে মোট ১২৬ ওভার খেলতে হবে বাংলাদেশকে। কঠিন কাজ? প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখে নিশ্চয়ই সম্ভাব্য উত্তরটা পেয়ে যাওয়ার কথা!

এদিকে অতীত ইতিহাসও ঠিক সুবিধার নয়। দুই ইনিংস মিলিয়ে মিরপুরেই বাংলাদেশ ১২৬ ওভারের কম খেলেছে, এমন ম্যাচ আছে ৪টি। ২০০৭ সালে ঢাকার মিরপুরে ভারতের বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশ দুই ইনিংস মিলিয়ে ৯৪.৫ ওভার ব্যাট করে ইনিংস ও ২৩৯ রানের ব্যবধানে হেরেছে। এরপর ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৮ সালে পর্যায়ক্রমে একইভাবে বাজে ব্যাটিংয়ের খেসারত দিয়েছে বাংলাদেশ।

আলোর স্বল্পতায় নির্ধারিত ওভারসংখ্যার আগেই শেষ হয় চতুর্থ দিনের খেলা
আলোর স্বল্পতায় নির্ধারিত ওভারসংখ্যার আগেই শেষ হয় চতুর্থ দিনের খেলাছবি: শামসুল হক
২০১৪ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইনিংস ও ২৪৮ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। সে ম্যাচে বাংলাদেশ দুই ইনিংস মিলিয়ে ১১৫.৪ ওভার খেলেছিল।

পাকিস্তানের বিপক্ষেও এর আগে ২০১৫ সালে ঢাকা টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ১০৪.৩ ওভার ব্যাট করে ৩২৮ রানের হার দেখতে হয়। সর্বশেষ উদাহরণ ২০১৮ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই ঢাকাতেই। দুই ইনিংস মিলিয়ে মাত্র ৭৫.১ ওভার ব্যাটিংয়ের খেসারত দিয়ে হারতে হয় ২১৫ রানে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ