• শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ১১:১১ অপরাহ্ন

ঢাবিতে মুরাদের কুশপুতুল দাহ, জুতা মিছিল

আমার কাগজ ডেস্ক: / ৩৫ শেয়ার
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ ও নারী বিদ্বেষী বক্তব্যের প্রতিবাদে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের কুশপুতুল দাহ ও জুতা মিছিল করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

সোমবার রাত নয়টায় সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এই কুশপুত্তলিকা দাহ করেন ছাত্র অধিকার পরিষদের ব্যানারে প্রতিবাদী শিক্ষার্থীরা।

এর আগে রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ডা. মুরাদ হাসানের কুশপুত্তলিকায় জুতার মালা পরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী।

ওই কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কানেতা ইয়া লাম লাম বলেন, ‘সম্প্রতি তারেক রহমানের কন্যা জাইমা রহমানকে নিয়ে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন ডা. মুরাদ হাসান। এরপর গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়েও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সাধারণ ছাত্রী হিসেবে এই প্রতিবাদ জানিয়েছি।’

এদিকে মুরাদ হাসানের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ছাত্রলীগের নেত্রীরাও। তারা বলেন, নিজের দলের হোক বা বিরোধী দল– দায়িত্বশীল পদে থেকে কোনো নারী নিয়ে এভাবে কেউ কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করতে পারেন না৷

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জিয়াসমিন শান্তা বলেন, ‘রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ আসনে বসা কোনো ব্যক্তির মুখের ভাষার এই শ্রী শুনে মনে হচ্ছে আমরা দেউলিয়া হওয়ার দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছি। এসব নিয়ে কথা বলার রুচি আসলেই নাই। কিন্তু ডোন্ট কেয়ার মুডে থাকলে বা নীরব থাকলে সমাজের অতি বুঝদার শ্রেণি মনে করে অপরাধী, তাই হয়ত চুপ মেরে আছে। আর কথা আমাদেরই বলতে হবে। নয়ত এসব ফালতু লোকদের মুখ দিয়ে বের হওয়া বিষে সব ধ্বংস হয়ে যাবে।’
ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে প্রতিমন্ত্রী মুরাদকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া এবং শামসুন নাহার হলের ছাত্রলীগ নেত্রীদের সম্পর্কে বলতে শোনা যায়, ‘তারা শিষ্টাচারের সংজ্ঞাটা আমাদের শেখাতে চাচ্ছে। তসলিমা নাসরিনের মতো অনেক তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশ আছে, দুঃখ লাগে কোনটা জানেন? এরা আবার জয় বাংলার কথা বলে। এরা ছাত্রলীগ করছে নাকি, এরা আবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছে, এরা নাকি আবার নেত্রী ছিল কোনো কোনো হলে৷ কিন্তু রাতের বেলা এরা নিজেদের হলে থাকতেন না, ঘুমাতেন হোটেলে হোটেলে৷ কারণ ফাইভ স্টার হোটেলে থাকার মজা, আর রোকেয়া হল শামসুন নাহার হলে থাকাটা কি এক কথা? আমি এর চেয়ে বেশি বললে মিছিল শুরু হয়ে যেতে পারে। আমি আর বেশি কিছু বলব না।’

এদিকে নানা বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল মঙ্গলবারই তাকে সরে যেতে হচ্ছে মন্ত্রিপরিষদ থেকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ