• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন

টানা বর্ষণে রংপুর নগরীতে জলাবদ্ধতা

প্রতিবেদকের নাম / ৩৫ শেয়ার
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

রংপুরে টানা বর্ষণে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডের অধিকাংশ এলাকাতেই। পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকা এবং ড্রেন নির্মাণে ধীরগতি হওয়ায় নিদারুণ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নগরবাসীকে। অল্প বৃষ্টিতেই পাড়ায় পাড়ায় হাঁটু পানি হলেও নগর ভবন বলছে, দ্রুত এই সমস্যার অবসান হবে। তবে, আস্থা নেই নগরবাসীর।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সন্ধা থেকে বুধবার দুপুর পর্যন্ত টানা বৃষ্টি হয় রংপুরে। কখনো মুষলধারে কখনো রিমঝিম। এই বৃষ্টিতে নগরীর কামাল কাচনা নতুনপাড়া, গুঞ্জনমোড় কল্যাণ সংসদ স্কুল সড়ক, মুলাটোল, কোতয়ালি থানা সংলগ্ন সড়ক, নিউ জুম্মাপাড়া, আলমনগর, নিউ জুম্মাপাড়া, দর্শনা, মর্ডান মোড়, আদর্শপাড়া, বাবু পাড়া, মাহিগঞ্জ, মাহিগঞ্জ চাল আড়ৎ সড়ক, আমাশু কুকরুল এলাকায় জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে।

কোন কোন এলাকার সড়কে এত বেশি পানি হয়েছে যে বাসা থেকে বেরই হওয়া যাচ্ছে না। ফলে মাত্র একদিনের বৃষ্টিতে রংপুর নগরীর স্বাভাবিক জীবনযাত্রা অচল হয়ে পড়েছে।

রংপুর আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ মোস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, গেল ১০ ঘণ্টায় ১০২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

সরেজমিনে কামালকাচনা গুঞ্জনমোড় এলাকার বাসিন্দা আবুল আলম মোস্তফার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমরা নাকাল। একটু বৃষ্টি হলেই মূল সড়ক থেকে কল্যাণ সংসদ স্কুল যাওয়ার রাস্তায় হাঁটুর ওপরে পানি উঠে যায়। এর কারণে রাস্তার দু-পাড়ের কয়েকশ’ পরিবার বাসা থেকে বের হতে পারেন না।

তিনি বলেন, ‘এই অবস্থা দীর্ঘদিন ধরে হলেও কোন কার্যকর উদ্যোগ নেই। অমরা এ নিয়ে এলাকাবাসী অনেকবার কথা বলেছি, শুধু আশ্বাস ছাড়া কোন কিছু মেলেনি। তাই সেই আশ্বাসও ছেড়ে দিয়েছি। যখন কাজ হয় হবে। আমরা দুর্ভোগ পোহাতেই থাকি।’ এভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

নগরীর মাহিগঞ্জ চাল আড়ৎ এলাকাবার বাসিন্দা জহুরুল ইসলাম জানান, এখানে রংপুরের সবচেয়ে বড় পাইকারি চালের আড়ৎ। রংপুর ছাড়াও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলার মানুষ এখানে চাল কিনতে আসে। কিন্তু সড়কে পানি জমে থাকায় মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই। আমরা অনেকবার বলেছি রাস্তা সংস্কার এবং ড্রেন নির্মাণ করতে, কিন্তু হচ্ছে না।

নগরীর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানা সংলগ্ন সড়কটি আরো বেহাল অবস্থা। এই সড়কটিতে বড় বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। সংস্কার তো নেই। বরং তার ওপর টানা বর্ষণে হাঁটুর ওপরে পানি জমেছে। ফলে এই সড়ক দিয়ে চলাচলরত মানুষদের সবথেকে বেশি দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা জানান, নগরীর ভেতরে অনেক উন্নয়ন কাজ চলছে। চলছে ড্রেন নির্মাণ কাজও। এই কাজগুলো শেষ হলে নগরীতে আর কোন জলাবদ্ধতা থাকবে না। ততদিন একটু কষ্ট হবার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

মেয়র বলেন, আশা করছি নগর উন্নয়নের জন্য নগরবাসী আমাকে সহযোগিতা করবে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ

পুরাতন সব সংবাদ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
%d bloggers like this: