• মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১০:১৮ অপরাহ্ন

ইসি আইন প্রণয়নে রাষ্ট্রপতির ভূমিকা চায় জাসদ

আমার কাগজ ডেস্ক: / ৩১ শেয়ার
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১

সংবিধানে নির্বাচন কমিশন গঠনে সুনির্দিষ্ট আইন প্রণয়নের কথা থাকলেও এত বছরে সেটি প্রণয়ন না হওয়া দুর্ভাগ্যজনক বলে মনে করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ। এজন্য ইসি গঠনে আইন প্রণয়নের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রপতির ভূমিকা চেয়েছে দলটি। এছাড়া সার্চ কমিটির মাধ্যমে ইসি গঠনের প্রক্রিয়াকে স্বাগত জানিয়েছে জাসদ।

বুধবার বিকাল ৪টায় বঙ্গভবনে নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে জাসদ প্রতিনিধি দলের আলোচনা হয়। জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বে এই প্রতিনিধি দলে ছিলেন দলের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, কার্যকরী সভাপতি রবিউল আলম, স্থায়ী কমিটির সদস্য মেশারেফ হোসেন, সহসভাপতি মীর হোসাইন আখতার ও রেজাউল করিম তানসেন।

সংলাপ শেষে বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে হাসানুল হক ইনু সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইসি গঠন নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত করেছেন বলে আমরা রাষ্ট্রপতিকে সাধুবাদ জানিয়েছি। এ পদ্ধতিটা নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য অংশগ্রহণমূলক হবে এবং এইটা গ্রহণযোগ্য দক্ষ নির্বাচন কমিশন উপহার দিতে সাহায্য হবে। আর দ্বিতীয় কথা, আমরা যেটি বলেছি যে সংবিধানের নির্দেশ অনুযায়ী একটি আইনি কাঠামো না থাকায় তুলনামূলকভাবে একটি অনুসন্ধান কমিটির মধ্য দিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন করার উদ্যোগটা ভালো।’

ইনু বলেন, ‘তিন নম্বর কথা বলেছি, পাঁচ বছর পর পর এ নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে যে বিব্রতকর অবস্থা সৃষ্টি হয়, তা থেকে স্থায়ী সমাধানের জন্য রাষ্ট্রপতি যেন উদ্যোগ গ্রহণ করেন। ভবিষ্যতে একটা আইনি কাঠামো তৈরি করার জন্য উনি যেন সরকারকে উপযুক্ত পরামর্শ এবং দিকনির্দেশনা দেন। তারপর আমরা বলেছি সার্চ কমিটি ও অনুসন্ধান কমিটি সাংবিধানিক সংস্থা থেকে হওয়ায় বাঞ্ছনীয়।’

এদিকে জাসদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতিকে দেওয়া লিখিত প্রস্তাবে বলা হয়, ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বংলাদেশের সংবিধান’-এর ১১৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অনধিক চারজন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের ক্ষমতা মহামান্য রাষ্ট্রপতি হিসেবে এককভাবে আপনার ওপর অর্পিত হলেও নির্বাচন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত গ্রহণের জন্য দলগুলোর সাথে আপনি আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। আপনার এ মহানুভব ও উদার উদ্যোগকে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সাধুবাদ জানায়। এই উদ্যোগে আমাদের দল জাসদকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

সংবিধানে নির্বাচন কশিমন গঠনের সুনির্দিষ্ট আইন প্রণয়নের তাগিদ দেওয়া থাকলেও দুর্ভাগ্যক্রমে এখনো পর্যন্ত সে আইন প্রণীত হয়নি। এমন পরিস্থিতিতে আমাদের দল জাসদ মনে করে যে তুলনামূলকভাবে যথোপযুক্ত দক্ষ ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে ‘সার্চ কমিটি’ গঠন একটি গ্রহণযোগ্য প্রক্রিয়া।

আমরা আশা করি যে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি হিসেবে আপনি সার্চ কমিটি গঠন করে যথোপযুক্ত দক্ষ ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ প্রদান করবেন।

আমাদের দল জাসদ আরও মনে করে যে, নির্বাচন কমিশন গঠনে আপনার উদ্যোগে সার্চ কমিটি গঠন করার প্রক্রিয়াকে সুনির্দিষ্ট ও স্থায়ী কাঠামোগত রূপ দেওয়াসহ নির্বাচন কমিশন গঠনের সুনির্দিষ্ট আইন প্রণয়ন করে নির্বাচন ব্যবস্থা নিয়ে সকল বিতর্কের অবসান করা প্রয়োজন।

জাসদ মনে করে যে সার্চ কমিটি গঠনে ব্যক্তির নাম প্রস্তাব করা সমীচীন নয়। আমরা বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতিগণ, বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের চেয়ারম্যান, মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকসহ সাংবিধানিক পদে অধিষ্ঠিত ব্যক্তিদের মধ্য থেকেই সার্চ কমিটির সদস্য মনোনয়ন দেওয়া সমীচীন।’
প্রসঙ্গত, গত সোমবার নির্বাচন কমিশন গঠন দিয়ে সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সঙ্গে সংলাপ হয় রাষ্ট্রপতির। নিবন্ধিত ৩৮টি দলের সঙ্গে পর্যায়ক্রমে এই সংলাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ