• রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:৩১ অপরাহ্ন

অশান্তি করে শান্তির মিছিল, এটাই আ.লীগের চরিত্র: ফখরুল

আমার কাগজ প্রতিবেদকঃ / ৪৭ শেয়ার
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সাম্প্রদায়িক সংকট তৈরি করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আজকে তারা শান্তির মিছিল বের করেছে।

সরকারকে ইঙ্গিত করে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘অশান্তি ঘটালেন আপনারা। আগুন দিলেন আপনারা; মারলেন আপনারা; গুলি করলেন আপনারা এবং নিরীহ মানুষগুলোকে হত্যা করলেন। আর আজকে আপনারা শান্তির মিছিল বের করলেন।’

এর চেয়ে লজ্জার ব্যাপার আর কিছু হতে পারে না মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এটাই। তাদের তো আমরা চিনি, তাদের তো আমরা জানি। এটাই আওয়ামী লীগ। এটাই তাদের চরিত্র। তাদের জন্মের পর থেকে এটাই তারা করে এসেছে।’

আজ মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা বলেন। জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠনের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

মির্জা ফখরুলের অভিযোগ, ‘আজকে সরকার সবকিছু নষ্ট করে দিয়েছে। ইতিহাস নষ্ট করছে, অতীত নষ্ট করছে, সমাজ নষ্ট করছে। আমাদের রাষ্ট্রকে ভেঙে খান খান করে দিচ্ছে।’ তারা আজকে সাম্প্রদায়িক সংকট তৈরি করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

বিএনপির মহাসচিবের ভাষ্য, এবারের উৎসব গতবারের মতো ছিল না। মানুষ ভয় পেয়ে গেছে। ঢাকেশ্বরীতে গিয়েছেন অনেক কম মানুষ; বনানীতে গিয়েছেন অনেক কম মানুষ। সরকারের কাছে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘কেন আমাদের ভাই, আমাদের পাড়াপড়শি, আমাদের দেশের স্বাধীন নাগরিক তাদের উৎসব পালন করতে পারবে না, কেন তারা ভয় পাবে?’

এর পেছনের কারণ হিসেবে মির্জা ফখরুল বলছেন, এ সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে এ দেশে বিভাজন সৃষ্টি করছে। এটাকে পুঁজি করে তারা তাদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে চাচ্ছে।

সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আয়োজক সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে এতে পেশাজীবী ও দলের নেতারা বক্তব্য দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ

পুরাতন সব সংবাদ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
%d bloggers like this: